৫২-হার্জ তিমি: সমুদ্রের নিঃসঙ্গ তিমির গল্প

৫২-হার্জ-তিমি:-সমুদ্রের-নিঃসঙ্গ-তিমির-গল্প

আমেরিকা এবং সোভিয়েত ইউনিয়নের স্নায়ুযুদ্ধ চলাকালীন সোভিয়েত সাবমেরিনের গতিবিধি পর্যবেক্ষণের উদ্দেশ্যে আমেরিকান নেভি বেশ কিছু স্থাপনা নির্মাণ করে। সেসব স্থাপনায় বসানো ছিল হাইড্রোফোন যন্ত্র, যা দিয়ে সমুদ্রের গভীরে সূক্ষ্মতম শব্দ শনাক্ত করা যেত। সোভিয়েত সাবমেরিনগুলো মূলত চলাচল করতো ২০-৫০ হার্জ শব্দ-সীমায়।

Total
0
Shares
মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Previous Post
বানান-বিভ্রাট:-‘ঈদ’-না-‘ইদ’?

বানান বিভ্রাট: ‘ঈদ’ না ‘ইদ’?

Next Post
দ্যা-গুড,-দ্যা-ব্যাড,-দ্যা-উইয়ার্ড:-ভীষণ-উপভোগ্য-এক-এশিয়ান-ওয়েস্টার্ন

দ্যা গুড, দ্যা ব্যাড, দ্যা উইয়ার্ড: ভীষণ উপভোগ্য এক এশিয়ান ওয়েস্টার্ন

Related Posts
জাসদের-উত্থান-পতন:-স্বাধীনতা-উত্তর-বাংলাদেশের-রাজনীতি

জাসদের উত্থান পতন: স্বাধীনতা উত্তর বাংলাদেশের রাজনীতি

একেবারে নিরপেক্ষ না হলেও, একেবারে পক্ষপাতদুষ্ট এমন তকমা এই বইয়ের জন্য ব্যবহার করা যাবে না। সিরাজুল আলম খানকে…
সব পড়ুন
মহামারি-কেন-মন্থর-করতে-পারেনি-জলবায়ু-পরিবর্তনকে?

মহামারি কেন মন্থর করতে পারেনি জলবায়ু পরিবর্তনকে?

জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকিগুলো এড়াতে লকডাউনের প্রক্রিয়াকে ইতিবাচক মনে করা হচ্ছিলো, মনে করা হচ্ছিলো লকডাউন মন্থর করে দিবে জলবায়ু…
সব পড়ুন